হাসান তানভীর এর MOTO-TRAVEL ব্লগ

Its better to travel well, then to arrive – Buddha

কেনো ঘুরে বেড়াবেন?

phoebe-lovatt-travel-resolutions-02

ব্যাপারটা জানার পর চমকে উঠলাম। চলুন জানি পৃথিবীর খুব উন্নত ২ টি দেশের কথা।

জাপান – যেই দেশকে আমরা অতি উন্নত দেশ বলে চিনি, সেই দেশে সুইসাইড এর সমস্যা হচ্ছে জাতীয় ইস্যু। যারা আত্ত হত্যা করে, তাদের ৭১% হচ্ছে পুরুষ। বয়স ২২ থেকে ৪৪ এর ভেতর। কারন গুলোর ভেতর আছে সামাজিক চাপ, হতাশা, বেকারত্ত। সবচে কমন যে কারন, তা হলো, অতিরিক্ত কাজ করা। এর একটা গালভরা নাম তারা দিয়েছে “কারোশি”। যার মানে “অতিরিক্ত কাজে মৃত্যু”।

অবস্থা কেরোসিন এমেরিকার ও। এরা তাদের সামাজিক জীবন, স্বাস্থ্য, পরিবার সবকিছুর উপরে রাখে কাজ কে। আর পরিসংখ্যান অনুযায়ী, (WHO),  এমেরিকা হচ্ছে পৃথিবীর সবচে উদ্বিগ্ন (টেনশিত) জাতি। এক তৃতীয়াংশ আমেরিকান এই রোগে ভোগে জীবনের শেষ দিন পর্জন্ত।

কাজের জন্য জীবন, নাকি জীবনের জন্য কাজ?

অন্য দিকে, ফরাসিরা কাজ করে ৩৫ ঘন্টা সপ্তাহে। পৃথিবীর লীডীং আওয়ারলি প্রডাক্টিভ জাতি এরা।

এবার আপনি বলুন আপনি কত ঘন্টা কাজ করেন। কমেন্ট করুন। আমার সত্যি ই জানতে ইচ্ছে করছে।

এক ভদ্রলোকের কথা বলি, যিনি এক তরুনির সাথে কথা বলছিলেন যে সিদ্ধান্তহীনতায় ভুগছিলো। সেকি বিয়ে করবে, নাকি পৃথিবী ঘুরে দেখতে বের হবে।

তিনি পরামর্শ দিলেন, পৃথিবী ঘুরে দেখার।

মেয়েটির বুক থেকে দির্ঘ নিঃশ্বাস বের হলো। “হে…ঠিক আছে…কিন্তু…”

কিন্তু তে এসেই আটকে গেলো। সবারই বোধহয় এমন হি হয়। কিন্তু গিলে খায়।

হ্যাঁ… ঠিক আছে…কিন্তু আমার তো অনেক লোণ আছে। তার কি হবে?

হ্যাঁ… ঠিক আছে…কিন্তু এতো অনেক টাকার ব্যাপার। কই পাবো?

হ্যাঁ… ঠিক আছে…কিন্তু আমার চাকরির কি হবে?

হ্যাঁ… ঠিক আছে…কিন্তু আমার ব্যাবসার কি হবে?

হ্যাঁ… ঠিক আছে…কিন্তু আমার…… যেতে দেবে না।

হ্যাঁ… ঠিক আছে…কিন্তু আমার ফ্যামিলি মানবে না।

হ্যাঁ… ঠিক আছে…কিন্তু এ কি সম্ভব। কি যে বলেন।

পৃথিবী তে যদি খুজে দেখা যায়, প্রচুর মানুষ পাওয়া যাবে, যারা বলবে, তাদের সপ্ন সারা পৃথিবী ভ্রমন করা। কিন্তু খোজ নিলে দেখা যাবে, খুব কম, খুবই কম লোক যারা বের হয়ে পড়েছে। বাংলাদেশ খুব সম্ভব ২/১ জন পাওয়া যেতে পারে। ভুল বললাম?

কেনো এমন হয়?

খুব সতর্ক থাকুন। এলার্ট!! এলার্ট। এই “হ্যাঁ… ঠিক আছে…কিন্তু” আপনার স্বপ্নের হত্যাকারী।

আপনি প্রকৃতি প্রেমিক। পাহাড়, চাঁদ, জোছনা, বৃষ্টি, সবুজের মেলা ইত্যাদি ভালোবাসেন।

কেউ বা স্থাপনা শিল্পের ভক্ত, কেউ নতুন জায়গা দেখতে ভালবাসেন অথবা কেউ খাদ্য রসিক। আপনি যা ই হোন না কেন, আপনার সেই চাহিদা ভ্রমণ করে বেড়ানো ছাড়া কখোনই মিটবে না। কোন এক সমুদের অসাধারণ সুর্জাস্তের সাক্ষি হওয়া, পাহাড়ের অনেক উচ্চতায় দাঁড়িয়ে হিমালয় এর উপর সুর্জের আলো পড়ে সোনার মত ঝলমল করে উঠতে দেখা, রোমের কলোসিয়াম, মিশরের পিরামিড বা মোনালিসার হাসি’র ছবির সামনে দাঁড়িয়ে আপনি অন্য এক আপনি তে রুপান্তরিত হবেন।

যখন মানুষ ২ পা থেকে ৩ পা ওয়ালা হয়ে যায়, তখন সে বাড়ির সামনে চেয়ার পেতে বসে। বৌমা বা কাজের ছেলে চা দিয়ে যায়। হাতে পত্রিকা। মনোযোগ দিয়ে পত্রিকা পড়ছেন।  আপাত দৃষ্টিতে ভদ্রলোক (এক কালের ডাক সাইটে চৌধুরী সাহেব) কে ব্যাস সুখী মনে হচ্ছে। অনেক্ষন থেকেই পড়েই যাচ্ছেন। এই পাতা, সেই পাতা, কত খুটিনাটি… হটাত,মাঝে মাঝে তিনি তাকিয়ে থাকেন পত্রিকার অক্ষর গুলোর দিকে… মন আর এখানে নেই। কি যে এক অতৃপ্তি, এক আফসোস। জীবন এভাবে কেটে গেলো? কি করলেন তিনি? কি দিলেন নিজেকে?  করলেন তো সবার জন্য। হায়…হায়…আর সময় নেই। এখন শুধু অপেক্ষা…চলে যাবার।

সময় আছে এখনো। বের হয়ে পড়া উচিত। বের হয়ে পড়ার জন্য তৈরি হওয়া উচিত।   অনেক দুর বহদুর, অনেক দেশ বহুদেশ যাওয়া উচিত।

নতুন কিছু অন্য রঙ এর/ অন্য ভাষার মানুষের সাথে মিশে আসো। অবাক হয়ে দেখো কত অদ্ভুদ নিয়ম তাদের কালচার এ। দেখে আসো কত অদ্ভুদ এবং মজার স্বাদ তাদের খাবারে। দেখে আসো সেই দেশটা যা তোমার দেশের চেয়ে কত অন্য রকম।

এ একটা অস্মভব স্বপ্ন সত্যি হয়ে আসা,

এ নিজেকে চেনা,

এ নিজের কাছে নিজেকে প্রমান দেয়া, যে আমি পারি…

এ শক্ত, পরিপূর্ণ একজন মানুষ হয়ে ওঠা…একজন সতিকার মানুষ।

এ নিজের অচেনা লুকায়িত শক্তি কে চেনা,

এ  বন্ধ চোখ কে খুলে দেয়া…

এ বুঝতে পারা, তোমার জীবনের সবকিছু শুধু নিজেকে নিয়ে নয়…

কার যেন কথাটা, জীবন মানে তোমার সব নিঃশ্বাসের সমস্টি নয়, জীবন মানে যেই মুহুর্ত গুলো তোমার নিঃশাস কে থামিয়ে দিয়েছিলো তীব্র আনন্দে আর ভালো লাগায়, তার সমস্টি।

সালতামামি করা যাক জীবনের। কয়টি মুহুর্ত এমন খুজে পেতে পাওয়া যাবে, যা নিঃশ্বাস কে থামিয়ে দিতে পেরেছিলো। তবে আসলে জীবন আমাদের কত দিনের দাড়াল। তবে জীবনের শেষ প্রান্তে কত হয়ে দাঁড়াবে আমাদের বয়স?

সেই বয়স, তখন নিজের ভেতরের এক সত্তা যার হিসেব চেয়ে বসবে। বল ব্যাটা, তোর বয়স কত? ৬৭?

ধুর ব্যাটা। তুই ক্লাস থ্রি।

2 comments on “কেনো ঘুরে বেড়াবেন?

  1. Ariful Islam Mithu
    March 22, 2015

    অসাধারণ লিখছেন ভাই, আপনার লেখা গুলো খুবেই ভালো লাগে আমার…

    Liked by 1 person

  2. Hassan Tanvir
    March 22, 2015

    অনেক ধন্যবাদ। সাথে থাকুন🙂

    Like

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

Join 262 other followers

Contact Info

Email: black_guiter@hotmail.com Skype: hassan.tanvir1
copyright @ hassantanvir.wordpress.com 2015
%d bloggers like this: