হাসান তানভীর এর MOTO-TRAVEL ব্লগ

Its better to travel well, then to arrive – Buddha

মহামায়া লেক, মিরেরসরাই

এই জায়গাটি রাঙ্গামাটিকে সৌন্দর্যের দিক দিয়ে অতিক্রম করেছে। আমি ঘুণাক্ষরেও কল্পনা করিনি এমন একটি অসম্ভব সুন্দর পাহাড়ি ছায়া আর লেক এর মিতালি পুর্ন প্রাকৃতিক একটি পরিবেশে গিয়ে হাজির হব।  ভীষণ অবাক হয়েছিলাম – এমন একটি জায়গার কথা আমি আগে শুনিনি।

কথা না বাড়িয়ে শুরু করা যাক।

সেপ্টেম্বর ২৯ তারিখ সকালে বাইক নিয়ে রওনা দিলাম। আমার এলাকা চট্টগ্রাম এর লালখান বাজার থেকে দুরত্ত ৬৫ কিলো- ঢাকা – চিটাগং হাইওয়ে দিয়ে যেতে হবে মিরসরাই ঠাকুরদা দিঘি তে। গিয়ে ডান দিকে ১.৫০ কিলো যেতে হবে। পথে সাইনবোর্ড দেখতে পাবেন “মহামায়া সেচ প্রকল্প” এই প্রকল্প টি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১০ এ উদ্ভোদন করেন। যাই হোক,  পথে সীতাকুণ্ড চন্দ্রনাথ পাহাড় যাবার রোড এর শুরুতে আছে আল আমি রেস্তোরা। গতবার খেয়েছিলাম- মুখে এখনো স্বাদ লেগে আছে। ওখানে লাঞ্চ করে নিলাম। এক সময় পৌঁছে গেলাম।

পৌঁছে টিকেট কাটলাম ১০ টাকা দিয়ে। কাউন্টার থেকে নানা কথা বলল – যে এক সময় এর টিকেট হয়ে যাবে ৫০০ টাকা (শুনে হাসি পেলো)।

লেক এর তীরে উঠেই ধাক্কা খেলাম। একি! এ যে নেপালের ফিউয়া লেক এর মত প্রায়। এত সুন্দর। নানা রঙের বোট গুলো তীরে রাখা।

DSC01479 copy

কিছুক্ষণ খবর নিলাম- তারপর ১০০০ টাকার বোট দামদর করে ৬০০ টাকা দিয়ে উঠে পড়লাম। আপনাকে অবশ্যই মনে রাখতে হবে ঝর্না সহ আরো ৩ টি লেক এ আপনাকে নিয়ে যাবে, এর মাঝে একটি লেক অনেক দুর (প্রায় ৭/৮ কিলো বোট এ) যেখানের কথা আপনাকে নাও বলতে পারে। সেখানে ২ পাশে সরু জায়গায় মাঝখানে পাহাড়ের দেয়াল এর মাঝে দিয়ে যেতে হবে – নৌ- সুড়ঙ্গ পথ বলা চলে। যেতে যেতে অনেক বানর, হরিন ইত্যাদি প্রানি চোখে পড়বে ভাগ্য প্রসন্ন হলে।

তো নৌ পথে রওনা হলাম। একটু গিয়েই মন ভালো হয়ে গেলো। ২ পাশে সারি সারি পাহাড়, পাহাড়ে নানা রকম গাছপালার ভিড়ে বাহারি ফুলের সৌরভ, পাখিদের কলতান, উড়ে বেড়ানো। সবুজ লেক মাঝ খানে আঁকা বাকা পথে এগিয়ে গেছে সাপের মত। মন আপনার নিমিষেই হারিয়ে যাবে।

DSC01541 copy

 

DSC01514

প্রায় এক কিলো গিয়ে দুর থেকে দেখলাম ঝর্না টি। উৎফুল্ল হয়ে উঠলাম। সত্যি, নিজেকে ভাগ্যবান মনে হয় আমি এই দেশে জন্মেছি। এর ভেতরেই আমি অনেক গুলো ঝর্না তে ভ্রমণ করে ফেলেছি – রিছাং ঝর্না (খাগড়াছড়ি), শুভ লং (রাঙ্গামাটি), শৈল প্রপাত (কাপ্তাই), ডেভি ফলস (নেপাল) ইত্যাদি। তবে এখনো অনেক বাকি আছে।

নৌকা থামিয়ে উঠে গেলাম ঝর্না তে – ইচ্ছে মত ঝর্নার তীব্র স্রোতে ডুবলাম। একবার নামলে আর উঠতে ইচ্ছে করে না। এরপর মাঝির তাগাদায় অবশেষে অনেক ছবি তুলে নিয়ে ভেজা জামা নিয়েই নউকাতে উঠে পড়লাম।

vlcsnap-2013-09-29-21h18m09s103 copy

vlcsnap-2013-09-29-21h50m05s60 copy

যেতে যেতে পথে এল বৃষ্টি। মাঝির কাছে ছিলো বিশাল এক ছাতা। অঝোর বৃষ্টি তে উপভোগ করতে লাগলাম নান্দনিক পাহড়ি দৃশ্যাবলী। চার পাশে পাহাড়ে ঢাকা লেক গুলো খুব ই মনো মগ্ধকর। কেউ কেউ মাছ ধরছে। কেউ ঘুরে বেড়াচ্ছে। বিশেষ করে বন্ধের দিনে কিছু মানুষ আসে। এমনিতেই জায়গাটি পরিচিত না হওয়াতে তেমন মানুষ জন যায় না। তবে নিরাপদ বলা যায়। (পার্বত্য অঞ্চল গুলোর মত নয় – ওখানে চাকমারা বেশ জালায়)

 

লেক এর তীরে বা দিকে সিড়ি করা – চাইলে পাহাড় থেকেও ঘুরে আসতে পারবেন।

সব মিলিয়ে খুব ই ভালো লাগলো। সিদ্ধান্ত নিয়েছে আবারো যাবো। ততদিন, ভালো থাকবেন সবাই। ধন্যবাদ।

Update: মহামায়া তে আমার ২য় ট্যুর

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

Join 262 other followers

Contact Info

Email: black_guiter@hotmail.com Skype: hassan.tanvir1
copyright @ hassantanvir.wordpress.com 2015
%d bloggers like this: